Ads by tnews247.com
কালের সাক্ষী পূরান ঢাকার বাহাদুর শাহ পার্ক

কালের সাক্ষী পূরান ঢাকার বাহাদুর শাহ পার্ক

Sun May 28, 2017     

ইংরেজদের শাষণ-শোষণ ও ঐতিহাসিক সিপাহী বিদ্রোহের বিপ্লবিদের স্মৃতিচিহ্ন ধারণ করে আজ ও মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে আছে পূরান ঢাকার বাহাদুর শাহ পার্ক। ইংরেজ শাসকদের বর্বরতা, নিষ্ঠুরতা ও স্বাধীনচেতা সেনাদের আত্মত্যাগের কালের সাক্ষী হয়ে আছে এ পার্ক।

ইংরেজ মেরিন সেনারা বাংলার সেনাদের নিরস্ত্র করার জন্য ১৮৫৭ সালের ২২ নভেম্বর ঢাকার লালবাগ কেল্লায় আক্রমণ চালায়। সে সময় স্বাধীনতার চেতনায় বিশ্বাসী সৈন্যরা ইংরেজ সেনাদের বাধা দিলে যুদ্ধ বেধে যায়। যুদ্ধ শেষে আহত ও পলাতক সেনাদের গ্রেফতার করা হয়। পরে এক প্রহসনমূলক বিচারের মাধ্যমে ইংরেজ সামরিক আদালতে ১১ বিপ্লবিকে ফাঁসির আদেশ দেওয়া হয়। রায় কার্যকরে তৈরি করা হয় ফাঁসির মঞ্চ।প্রকাশ্যে বাহাদুর শাহ পার্কে তাদের ফাঁসি কার্যকর করা হয়।

ইংরেজদের বিরুদ্ধে বিদ্রোহের পরিণাম হিসেবে জনগণকে ভয় দেখাতে বিপ্লবী সিপাহীদের লাশগুলো ঝুলিয়ে রাখা হয় পার্কের সারিবদ্ধ গাছের ডালে। ইংরেজদের বর্বরতা ও সেনাদের আত্মত্যাগের সাক্ষ্য আজো বয়ে চলেছে পুরান ঢাকার বাহাদুর শাহ পার্ক।

আঠার শতকের শেষ দিকে পুরান ঢাকায় আর্মেনীয়রা বিলিয়ার্ড ক্লাব তৈরি করে। যেটি স্থনীয়দের কাছে আন্টাঘর নামে পরিচিত ছিল। ক্লাব ঘরের সাথেই ছিল একটি মাঠ, যেটিকে বলা হতো আন্টাঘর ময়দান। ১৮৫৮ সালে রানী ভিক্টোরিয়া ভারতবর্ষের শাসনভার নেওয়ার পর এই ময়দানেই এ সংক্রান্ত একটি ঘোষণা পাঠ করে শোনান ঢাকা বিভাগের কমিশনার। তখন থেকে এই স্থানের নামকরণ হয় ‘ভিক্টোরিয়া পার্ক’।

সিপাহী বিদ্রোহ এবং পরবর্তীতে ইংরেজ শাসকদের বর্বরোচিত ঘটনার প্রেক্ষাপটে ১৯৫৭ সালে সিপাহী বিদ্রোহের শতবার্ষিকী পালন উপলক্ষ্যে ‘ঢাকা ইমপ্রুভমেন্ট ট্রাস্ট’ (ডিআইটি) এর উদ্যোগে এখানে একটি স্মৃতিসৌধ নির্মাণ করা হয়। এই বিদ্রোহের মাধ্যমে ইংরেজ শাসনের পতন ঘটিয়ে মুঘল সম্রাট দ্বিতীয় বাহাদুর শাহের শাসন পুনরায় চালু করার চেষ্টা করা হয়। তাই তার নামানুসারে পার্কের নাম পরিবর্তন করে রাখা হয় বাহাদুর শাহ পার্ক।

ঊনিশ শতকের প্রথমার্ধে ইংরেজরা এটি কিনে নেয়। তারা এটিকে পার্কের রূপ দেয় এবং এর চারদিকে লোহা দিয়ে ঘিরে দিয়ে এর চার কোণায় চারটি দর্শনীয় কামান স্থাপন করে। অচিরেই স্থানটি জীর্ণ হয়ে গেলে ভেঙে নওয়াব আব্দুল গণির উদ্যোগে একটি ময়দান তৈরি করা হয়।

এ পার্কের উন্নয়নে নওয়াব আব্দুল গণির অবদান ছিল অপরিসীম। তার নাতি খাজা হাফিজুল্লার মৃত্যুর পর তার ইংরেজ বন্ধুরা হাফিজুল্লার স্মৃতি রক্ষার্থে চাঁদা তুলে ১৮৮৪ সালে এখানে একটি স্মৃতিফলক স্থাপন করে। শহীদদের আত্মত্যাগের স্মৃতিরক্ষার্থে উত্তর দিকে একটি সুউচ্চ স্মৃতিসৌধ নির্মাণ করা হয়। উঁচু বেদির ওপর নির্মিত চার স্তম্ভের গোলাকার আচ্ছাদনে ঘেরা সৌধটি।

পার্কটি ডিম্বাকৃতির এবং লোহার রেলিং দিয়ে ঘেরা। এরপূর্ব এবং পশ্চিম পাশে দুটো প্রধান গেট রয়েছে। পার্কটির ভেতরে রেলিংয়ের পাশ দিয়ে পাকা রাস্তা আছে। পার্কটি ঢাকার অন্যতম প্রধান নৌবন্দর সদরঘাট এলাকায় ঢুকতেই লক্ষ্মীবাজারের ঠিক মাথায় অবস্থিত।

পার্কটিকে ঘিরে ৭টি রাস্তার মিলনস্থান। এর চারপাশে সরকারি গুরুত্তপূর্ণ স্থাপনাসহ বেশ কিছু স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় থাকার কারণে এটি পুরান ঢাকার একটি অন্যতম গুরুত্তপূর্র্ণ এলাকা হিসেবে বিবেচিত। পার্কের দক্ষিণ-পশ্চিম কোণে রয়েছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ,উত্তরপাশে রয়েছে সেন্ট থমাস চার্চ, একই পাশেই অবস্থিত ঢাকার প্রথম পানি সরবরাহ করার জন্য তৈরি পানির ট্যাংক। উত্তর-পূর্ব কোণে আছে ঢাকার অন্যতম কলেজ কবি নজরুল সরকারি কলেজ এবং ইসলামিয়া হাইস্কুল, পূর্ব পাশে রয়েছে ঢাকার অন্যতম প্রাচীন বিদ্যালয় সরকারি মুসলিম হাইস্কুল। ঠিক উত্তর-পশ্চিম পাশেই রয়েছে ঢাকার জজকোর্ট। এছাড়া, বাংলা বাজার, ইসলামপুর, শাঁখারী বাজার থেকে বর্তমান ঢাকার নতুন এলাকায় আসতে এ পার্ক এলাকার রাস্তাটি প্রধান সড়ক হিসেবে ব্যবহৃত হয়।

বর্তমানে পার্কটি নানা সমস্যায় জর্জরিত। পার্কের মাঝখানে আছে একটি জলহীন ফোয়ারা। চারদিকের দেয়ালের নিচের মাটি সরে গেছে। ।স্বৃতিস্তম্ভের ওপর জুতা পায়ে বসে আছেন দর্শনার্থীরা। ডিম্বাকার এ পার্কটির বাইরের রেলিং কেটে নিচ্ছে নেশাখোররা। রাতে বসে মাদকসেবীদের আড্ডা। সরেজমিন পার্কটির এমন চিত্র পাওয়া যায়।

পার্কটির নানা সমস্যা থাকলেও বর্তমানে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশণ এর উদ্যেগে আধুনিক টয়লেট তৈরি করা হয়েছে।এ ছাড়া পার্কটির আরো উন্নোয়ন মূলোক কাজ হাতে নেওয়া হয়েছে।

ঢাকা মহানগর ইমারত (নির্মাণ, উন্নয়ন, সংরক্ষণ ও অপসারণ) বিধিমালা, ২০০৮-এর বিধি ৬১ অনুযায়ী রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের মহাপরিকল্পনাভুক্ত স্থাপনা হিসেবে ঐতিহাসিক গুরুত্তের বিবেচনায় বাহাদুর শাহ পার্ককে সংরক্ষণের জন্য তালিকাভুক্ত করা হয়। কিন্তু পার্কের উত্তরের রাস্তায় ডাস্টবিন, ময়লার ছড়াছড়ি। উত্তর-দক্ষিণের ফুটপাতে দোকান এবং রিকশার জট। নষ্ট হচ্ছে পার্কের সৌন্দর্য। পশ্চিম দিকের প্রবেশদ্বার বন্ধ রাখা হয়। পূর্ব দিকেরটা দিন-রাত ২৪ ঘণ্টাই খোলা থাকে।

এখানে স্থানীয়ভাবে প্রাত:ভ্রমণকারী সংঘ গড়ে তোলা হয়েছে। এ সংঘের সদস্যরা ভোর, বিকেল এবং সন্ধ্যায় হাঁটেন। এছাড়া, নানা পেশা ও চাকরিজীবী, পথচারী, ছাত্র-ছাত্রী ও সাধারণ জনগণের নিত্যপদচারণা রয়েছে কালের সাক্ষী এ পার্কে।






Facebook এ আমরা

আরও খবর


ধীরে ধীরে বদলে যাচ্ছে রাজধানীর চিরচেনা রূপ আর ছয়দিন পরই মুসলমানদের সব থেকে বড় ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর অনুষ্ঠিত হবে। অনেকে আবার হিসেব করছে পাঁচ দিন পর অনুষ্ঠিত হবে

 

রাজধানীতে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে নিহত ৩ রাজধানীর লালবাগে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে একই পরিবারের ৩ জন নিহত হয়েছেন। সোমবার বেলা ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে

 

বিমানবন্দরে প্রায় সাড়ে ৫ কেজি সোনাসহ মালয়েশিয়া ফেরত এক যাত্রীকে আটক শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে প্রায় সাড়ে ৫ কেজি সোনাসহ মালয়েশিয়া ফেরত এক যাত্রীকে আটক

 

অটোরিকশার ধাক্কায় এক শিশু নিহত রাজধানীর খিলগাঁওয়ে সিএনজিচালিত অটোরিকশার ধাক্কায় আরমান (১০) নামে এক শিশু নিহত

 

বৃষ্টির কারণে শাহজালাল বিমানবন্দরে উড়োজাহাজ উড্ডয়ন ও অবতরণে বিঘ্ন বজ্রপাতসহ ঝড়ো বৃষ্টির কারণে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে উড়োজাহাজ উড্ডয়ন ও অবতরণে বিঘ্ন ঘটেছে। আজ ১৭ জুন দুপুর আড়াইটার দিকে খারাপ আবহাওয়ার কারণে বেশ কয়েকটি এয়ারলাইন্সের

 

শাহজালালে ২৭ লাখ টাকার সিগারেটসহ আটক ১ হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে প্রায় ২৭ লাখ টাকা মূল্যের ৩৩৮ কার্টন আমদানি নিষিদ্ধ বিদেশি সিগারেট জব্দ করেছে

 

অন্যান্য

ধীরে ধীরে বদলে যাচ্ছে রাজধানীর চিরচেনা রূপ

রাজধানীতে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে নিহত ৩

বিমানবন্দরে প্রায় সাড়ে ৫ কেজি সোনাসহ মালয়েশিয়া ফেরত এক যাত্রীকে আটক

অটোরিকশার ধাক্কায় এক শিশু নিহত

বৃষ্টির কারণে শাহজালাল বিমানবন্দরে উড়োজাহাজ উড্ডয়ন ও অবতরণে বিঘ্ন

শাহজালালে ২৭ লাখ টাকার সিগারেটসহ আটক ১

রাজধানীর লালবাগে দ্বিতীয় বিয়ে করতে না পেরে যুবকের আত্মহত্যা

রাজধানীর ধানমণ্ডি এলাকা থেকে আট ভুয়া ডিবি সদস্যকে গ্রেপ্তার

রাজধানীতে বাস দুর্ঘটনায় কলেজ ছাত্রসহ দুইজন নিহত

ট্রেনের ধাক্কায় অজ্ঞাতপরিচয়ে এক যুবকের মৃত্যু

যাত্রীবাহী বাস উল্টে শিশুসহ দুইজন নিহত

রাজধানীর গুলিস্তানে বাসের ধাক্কায় ব্যবসায়ী নিহত

রাজধানীর বিভিন্ন সড়কে বৃষ্টির পানি

রাজধানীতে পুকুরে ডুবে শিশুর মৃত্যু

দূর হচ্ছে জোয়ারসাহারা বাড্ডার ভূমি জটিলতা

বৃষ্টির পর ভোগান্তির শেষ নেই নগরবাসীর

সাভারে এক কিশোরী গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

কমলাপুরে ট্রেনের টিকিটের জন্য দীর্ঘ লাইন

এক বছরে ঢাকায় ১ লাখের বেশি গাড়ি নেমেছে

রাজধানীতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১

সম্পাদক: মেহারাব খান মুন
৩৮ গরিব এ-নেওয়াজ এভিনিউ, উত্তরা, ঢাকা ১২৩০. ইমেইল: info@tnews247.com
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত tnews247.com ২০১৪
Hosted & Developed by N. I. Biz Soft