Ads by tnews247.com
শব্দকে জীবিত করে কবিতার জীবন্ত ছবি আঁকেন কাজী আরিফ

শব্দকে জীবিত করে কবিতার জীবন্ত ছবি আঁকেন কাজী আরিফ

Sat April 19, 2014     

কাজী আরিফ। জন্ম ৩১ অক্টোবর ১৯৫২ সাল। ছোটবেলায় জন্মস্থান চট্টগ্রাম শহরে বেড়ে উঠেন তিনি। শুরুতে এখানেই তার পড়াশুনা, রাজনীতি, শিল্প-সাহিত্য এসব কিছুরই হাতেখড়ি হয়। তিনি একাধারে একজন সাংস্কৃতিক ব্যাক্তিত্ত্ব, আবৃত্তিকার, লেখক ও মুক্তিযুদ্ধ সংঘটক।

এছাড়া তিনি ১৯৭১সালে '১ নম্বর সেক্টর' এর মেজর রফিকের কমান্ডে সরাসরি মুক্তিযুদ্ধে অংশ গ্রহণ করেন। এরপর যুদ্ধ শেষে বুয়েটে পড়াশুনা শুরু করেন আর সাথে সমান তালে এগিয়ে যেতে থাকে তার শিল্প, সাহিত্য, সংস্কৃতি এবং রাজনীতির সাথে সম্পৃক্তা।

 সম্প্রতি tnews247.com -কে দেয়া এক সাক্ষাতকারে তিনি তার সাবলিল অভিব্যক্তি দিয়ে নিজের অনেক না বলা কথা আমাদের মাঝে শেয়ার করেছেন।

 

 # আপনি কি শুধু বিনোদনের জন্য আবৃত্তি করেন?
আমি আবৃত্তি করি বিনোদনের জন্য, মোটেই তা নয়। আবৃতি বিনোদনের কোন মাধ্যম নয়। এটা একটা কাল বা সময়কে শিল্পত্ব রূপের মাঝ দিয়ে উন্মোচন করার উপযোগ্য সত্য প্রকাশ। সুতরাং যারা আবৃতিকে নিছক বিনোদনের মাধ্যম ভাবেন, আমার স্পষ্ট ভাষায় তারা ভুল বুঝবেন এবং ভুল ভাববেন। কারন কোন শিল্প কখনোই বিনোদন নয় আর বিনোদনের জন্য শিল্প সৃষ্টি হয় না।

 

 #আবৃত্তির শুরু টা কিভাবে হয়ে ছিল?
আমি চট্টগ্রাম শহরে বেড়ে উঠেছি আর ওখানেই আমার পড়াশুনা, রাজনীতি, শিল্প-সাহিত্য এসব কিছুরই হাতেখড়ি। তারপর মুক্তিযুদ্ধ এবং আমার সরাসরি যুদ্ধ করা, ১ নম্বর সেক্টর মেজর রফিকের কমান্ডে। অবশেষে যুদ্ধ শেষে বুয়েটে পড়াশুনা, শিল্প, সাহিত্য, সংস্কৃতির সাথে এবং রাজনীতির সাথে ঢাকাতে জড়িয়ে থাকা, যা আজও চলমান।

 

# 'আবৃত্তি করা' আর 'কবিতা পড়া' দুটো কি দুই জিনিস?
হ্যাঁ। আবৃতি আর কবিতা পড়া দুটো দুই রকমের। আবৃতি শিল্পগুণ সমৃদ্ধ আর পাঠ শুধু পড়ে যাওয়া বিবর্জিত।

 

#কোন কবিতা আবৃত্তি করতে বেশি ভালো লাগে- গদ্য নাকি অন্ত্যমিলের ছন্দ কবিতা?
দুই ধরনের কবিতাই আমি পড়ি, আমার পড়তে ভালো লাগে। তাবে শুধু পদ্য আবৃতি করি তা নয়, গদ্য থেকেও করি। তাবে যা কিছু আবৃতি করি না কেন, ছড়াটা যেন রস আস্বাদনে আমার সাথি হয়, সেটা মাথায় রেখে মঞ্চে উঠি বা অন্য কোনও মাধ্যম যেমন, রেডিও, টেলিভিশনে যাই। আর একটা কথা, যাই পড়ি না কেন, তার শিল্প রূপ যেন কণ্ঠ থেকে পেয়ে, মনোনটাতে পুরো আশ্রয় পায় সেটি মনে রাখতে হয় শুরু থেকেই। আর সব কবিতাই তো ছন্দবদ্ধ। ছন্দ ছাড়া সব কিছুই তো অচল। তবে হ্যাঁ, অন্ত্যমিলের কবিতা আর গদ্য ছন্দে লেখা কবিতা দুটোতে ছন্দকে সম্পূর্ণ পরিষ্কার হয়ে, মাথা ঠাণ্ডা করে ছন্দ মেনে পড়তে হয়। ছন্দ কেটে গেলে তো সিদ্ধ হবে না, আর তা শ্রোতারাই বা শুনবে কেন? কবিতা পড়ার সময় ছন্দ আপন থেকে নিজেকে উন্মোচন করে......

 

#জীবনে কবিতাকেই কেন আপন করে নিলেন? গান কিংবা অভিনয় তো আপনাকে বিশেষভাবে পরিচিত করতে পারতো।

 কবিতা সবগুলো শিল্প মাধ্যমের মধ্যে শ্রেষ্ঠ। এর চিত্তকল্প অনেক গভীর আর বিশদ অথচ কই একটি মাত্র ...... আর ব্যাপ্তি আজীবনের। মজার বিষয় হল, কবিতা আবৃতি যখন মাত্রা পায় তখন তার আরেক মাত্রা যোগায় শ্রোতার কাছে আপন ভাবনার জগতে ঠাই করে নেয় এবং ভাবনার রেশ দীর্ঘকাল মনের কুঠরিতে যতনে রয়ে যায়। আমি ছোট বেলায় গান শিখেছিলাম,গেয়েওছি দীর্ঘদিন। এটা আর আবৃতির মাঝে আমি তফাৎ পাইনা, কারন দুটোই কথার মালাতে সাজানো আর দুটোই সুরময়। তবে গানের সুরটা প্রকট ও প্রচ্ছন্ন। আবৃতি ঠিক তা নয়। গান শেষে সুর কানে লেগে থাকে, আর আবৃতিতে লুকিয়ে থাকে রূপকল্প, চিরকল্প যার নির্মাতা, শ্রোতা স্বয়ং। আর অভিনয় এক একটা চরিত্রকে অনেক কথার মাঝে ফুটিয়ে তোলা......আর সবাই যে সব কিছুতে পারদর্শী হবে তার কোনও কারন নেই। আমি আবৃতিতে যতটুকু আমার দর্শক- শ্রোতার কাছে যেতে পারি, তাকে আমি অনেক বেশি দুরূহ কাজ বলে মনে করি। এখানেই আমার আনন্দ। একটা আবৃতি তৈরি করে, দর্শক- শ্রোতাকে কবিতার ভিতর দিয়ে, তার মনের ভিতর নাড়া দিয়ে একটা চিরায়ত ভাবনাকে মানুষের মধ্যে এঁকে দেয়া আমার ভাষায় বেশ একটা বড় মাপের শিল্প কাজ। আমি তাই আবৃতিকেই বেছে নিয়ে বেঁচে আছি আমার ভুবনে। তবে বেশ জোর দিয়েই বলতে পারি, আবৃতি অনেক কঠিন একটা শিল্পমাধ্যম। সবাইকে পারতে হবে, তেমন সহজ নয়।

 

#বর্তমানে যে আবৃত্তি সংঘ বা দলগুলো আছে, তাদের উদ্দেশ্যে কিছু বলুন?

আবৃতি দলগুলোর ভালো দিক হচ্ছে, অনেক নতুন প্রজন্মের ছেলে- মেয়েরা নিজেদের আবৃতির সাথে যুক্ত করছে। মন প্রান দিয়ে উচ্চারণ করছে, ভালবাসছে। আবৃতিতে এটা অনেক পাওয়া। আর কষ্ট সেটা পরে, যখন আবৃতি থেকে নিজেকে গুটিয়ে ঘরে ফিরে যায়। থাকে তখন হারাধনের একটি ছেলে বা মেয়ে। এই একটি ছেলে বা মেয়েই বা কম কিসের?... এভাবেই আবৃতি এগুচ্ছে এবং সামনে আরও এগোবে, এই শিল্প মাধ্যম। আমরা একদল আবৃতিকার হব, নিশ্চয়ই হব, এ আমার আশাবাদ।

 

 # সমুদ্রে স্নান করতে নেমে অসময়ে চারটা তাজা প্রাণ চলে গেল। তাদের ব্যাপারে কিছু বলবেন?

 সবচেয়ে আগে যারা ওখানে হারিয়ে গেল অসময়ে, তাদের সবার জন্য অশেষ শান্তি আর দুঃখ প্রকাশ করছি। আর আমার ভাষায় পর্যটন শ্লপের উদাসীনতা তো আছেই, এটা বলার অপেক্ষা রাখে না।

যারা পর্যটন শিল্পের সাথে জড়িত তারা প্রথমত জীবনের মূল্যের চেয়ে, ব্যবসায় তাদের আর্থিক মূল্যকে বেশি ভালবাসেন। তাই মানবিক মূল্যবোধহীন এদের সামাজিক আচরণ আর ভাবখানা এমন যে, এটা নিছক অ্যাক্সিডেন্ট, তাদের করার কিছুই ছিল না।

এখানে এটাই প্রশ্ন তাদের কাছে, কতটুকু প্রফেশনাল শিক্ষা রয়েছে সমুদ্র বা দুর্গম নির্জন এলাকায় পর্যটকদের সামাল দেয়ার, এবং জীবন বাঁচানোর। সব করা যায় কিন্তু মানুষের জীবন যা অফেরতযোগ্য তা নিয়ে ব্যবসায়িক খেলা খেলতে হয় না।

তাই নামে মাত্র সুষ্ঠ প্রশিক্ষণহীন অপর্যাপ্ত লোকবল দিয়ে পর্যটকদের বিপদ আর মৃত্যুর পথে ঠেলে দিবেন না। সরকারের উচিত একটু নিষ্ঠাবান নীতিমালাতে এদের বাণিজ্যকে উপযোগী করে তোলা, যাতে অকালে প্রান হারাতে না হয় কারো।

উদ্ধারকর্মীরা আমি জানি নিবেদিত, কথাটা মিথ্যা নয়। কিন্তু যা যা সামগ্রী উদ্ধার কাজে যখন তখন প্রয়োজন তা কি তাদের রয়েছে, আর তারা কি উদ্ধার কাজে সংখ্যার দিক থেকে সত্যি পর্যাপ্ত, আর সত্যি কি উদ্ধার কাজে তারা অভিজ্ঞ নাকি আরও প্রশিক্ষণের দরকার রয়েছে।

দুই পক্ষের অর্থাৎ পর্যটক আর পর্যটন শিল্পের যারা, দুই পক্ষেরই পর্যাপ্ত এবং সত্যিকার অর্থে বিশেষভাবে তথ্য এবং তার প্রয়োগ ব্যবহারবিধি জানা এবং সেইমত মানা প্রয়োজনীয়।

যেমন সমুদ্র স্নানে যাবার বার্তা বিষয়ে জানতে হবে এবং মানতেই হবে। আর সর্বক্ষণ সতর্কতা অবলম্বন এবং বাসে এরসাথে যোগাযোগের সত্যিকার সুবন্দোবস্ত আবশ্যিক। যেন প্রয়োজনে বাসে সাথে সাথে লোকবল দিয়ে সাহায্য করতে পারে। আর প্রত্যেককে নিজে সচেতন হতে হবে। আর সবচেয়ে আগে একে অপরকে এই ব্যপারে সাহায্য করতে হবে অবশ্যই। কোন বীরত্ব চলবে না, তেমনি চলবে না কেউ কাউকে চ্যালেঞ্জ করা।

বর্তমানে আবৃত্তিকার ও সাংস্কৃতিক ব্যাক্তিত্ত্ব কাজী আরিফ চিকিৎসাধীন অবস্থায় দেশের বাহিরে আছেন।

আমরা tnews247.com এর পক্ষ থেকে তার রোগ মুক্তি এবং সর্বাঙ্গিন মঙ্গল কামনা করছি। তিনি যেন আবার সুস্থ্য হয়ে দেশে ফিরে আসেন এবং দেশের সাংস্কৃতিক অঙ্গনে অবদান রাখতে পারেন।






Facebook এ আমরা

আরও খবর


বাবা হওয়ার অনুভূতি কখনো ভাষায় প্রকাশ করার নয়ঃশাকিব খান শাকিব খান মুঠোফোনে বলেন, ‘আমি আমার বাবাকে বাবা বলে ডাকছি আর এখন আমার সন্তান আমাকে বাবা বলে ডাকবে এটা অন্যরকম একটা অনুভূতি। বাবা হওয়ার অনুভূতি কখনো ভাষায় প্রকাশ করার নয়। নিজের বাবা হওয়ার অনুভূ

 

বরুণের জন্য কিশোরী ভক্তের কাণ্ড প্রিয় তারকাদের জন্য ভক্তরা নানা রকম পাগলামী করে থাকেন। কয়েকদিন আগে শাহরুখ খানের সঙ্গে দেখা করতে ঘর থেকে পালিয়েছিল ছয় কিশোরী। এবার একই রকম ঘটনা ঘটল অভিনেতা বরুণ ধাওয়ানের সঙ্গে। এ অভিনেতার সঙ্গে দেখা

 

মিমকে নিয়ে সুইজারল্যান্ড যাচ্ছেন ফেরদৌস জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেতা ফেরদৌস। বর্তমানে সিনেমা ও বিজ্ঞাপনের শুটিং নিয়ে বেশ ব্যস্ত সময় কাটছে তার। এরই ধারবাহিকতায় চলতি মাসে মডেল-অভিনেত্রী বিদ্যা সিনহা মিমকে নিয়ে সুইজারল্যান্ড যাচ্

 

সিনেমায় নয় এবার বাস্তবেই সাংসদ হতে চান ডিপজল ভিলেন রুপে যার আগমনে ঢাকাই চলচ্চিত্রে এক সময় ভিন্ন মাত্রা যোগ হয়েছিল। যিনি ভিলেনের ভূমিকায় অভিনয় করেও নায়কের জনপ্রিয়তা পেয়েছিলেন। তিনি আর কেউ নন, অভিনেতা মনোয়ার হোসেন ডিপজল

 

বাবা-মার পছন্দের পাত্রীকে কখনোই বিয়ে করবেন না রণবীর কাপুর ঋষি কাপুর ও নীতু কাপুরের ছেলে রণবীর কাপুর। বলিউডের কাঙ্ক্ষিত ব্যাচেলরদের মধ্যে তিনি একজন। সিনেমার পাশাপাশি ব্যক্তি জীবনে প্রেম ও বিয়ে নিয়ে প্রায়ই খবরে আসেন তিনি

 

এবার জনসচেতনামূলক সিনেমা নিয়ে হাজির হচ্ছেন অক্ষয় বলিউড অভিনেতা অক্ষয় কুমার। দর্শকদের উপহার দিচ্ছেন একের পর এক হিট সিনেমা। সিনেমায় বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করে বেশ প্রশংসা পাচ্ছেন তিনি। এবার জনসচেতনামূলক একটি সিনেমা নিয়ে

 

অন্যান্য

বাবা হওয়ার অনুভূতি কখনো ভাষায় প্রকাশ করার নয়ঃশাকিব খান

বরুণের জন্য কিশোরী ভক্তের কাণ্ড

মিমকে নিয়ে সুইজারল্যান্ড যাচ্ছেন ফেরদৌস

সিনেমায় নয় এবার বাস্তবেই সাংসদ হতে চান ডিপজল

বাবা-মার পছন্দের পাত্রীকে কখনোই বিয়ে করবেন না রণবীর কাপুর

এবার জনসচেতনামূলক সিনেমা নিয়ে হাজির হচ্ছেন অক্ষয়

ভিন্ন ভিন্ন চরিত্র নিয়ে দর্শকদের সামনে মোশাররফ করিম

ফল খেয়ে হাসপাতালে চিত্রনায়িকা জয়া

ভুল না বুঝতে অনুরোধ জানেয়েছেন নুসরাত ফারিয়া

৬ অক্টোবর বিয়ের পিঁড়িতে সামান্থা

হাঙরের সঙ্গে সাঁতরালেন ক্যাটরিনা

যেমন ছিলেন ছোট মোশাররফ করিম

নগ্ন ছবি পোষ্ট করে বিতর্কে ফাতিমা সানা

অমিতাভ নাতনির ছবি উত্তাপ ছড়াচ্ছে অনলাইনে

সালমানে বাবার মাসিক আয় ছিল ৭৫০ টাকা!

১০২ ডিগ্রি জ্বরে আক্রান্ত নায়িকা মিমি

বধূ বেশে কলকাতার ঝিলিক, বর বাংলাদেশের হাসান জাহাঙ্গীর

ভালো নেই জোলি

ঈদে মাহফুজ ও শিমুর অসামাজিক

ডিক্যাপ্রিওর ‘প্লাবনের আগে’

সম্পাদক: মেহারাব খান মুন
৩৮ গরিব এ-নেওয়াজ এভিনিউ, উত্তরা, ঢাকা ১২৩০. ইমেইল: info@tnews247.com
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত tnews247.com ২০১৪
Hosted & Developed by N. I. Biz Soft